ঈর্ষনীয় সাফল্যে পি বি আই ঢাকা জেলাঃ ক্লু’লেস মামলা অতঃপর রহস্য উদঘাটন

0

বিশেষ প্রতিনিধিঃ

আশুলিয়ার পোশাক শ্রমিক রীনা হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচ্চন করলো পিবিআই ঢাকা জেলা, ক্লু না থাকায় অজ্ঞাত আসামী করে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা, স্বামী গ্রেফতার, দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দী প্রদান করেন।

আশুলিয়া এলাকায় পোশাক শ্রমিক রীনা (২৫) বেগমকে হত্যার দায়ে স্বামী আঃ মোতালেব (৩০) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ঢাকা জেলা। গ্রেফতারকৃত মোতালেবকে আজ মঙ্গলবার বিজ্ঞ আদালতে হাজির করা হলে স্ত্রী হত্যার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারক্তিমুলক জবানবন্দী প্রদান করেছে।

গত ০৬ মে গাজীপুর জেলার টংগী থানাধীন হিমারদিঘী এলাকা থেকে মোতালেবকে গ্রেফতার করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ঢাকা জেলা টীম। গ্রেফতারকৃত মোতালেব রংপুর জেলার গংগাচড়া থানার দক্ষিন পানাপুকুর গ্রামের মাহাতাব উদ্দিনের ছেলে।

আজ মঙ্গলবার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ঢাকা জেলা থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য জানা যায়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, ভিকটিম মৃত রীনা বেগম আশুলিয়া থানার জিরাবো পুকুরপার এলাকার মামুনের বাসায় ভাড়া থেকে একটি পোশাক কারখানায় কাজ করত। রীনা বেগম রংপুর জেলার কোতয়ালী থানার পুর্ব কিসামাত গ্রামের সবেদ আলীর মেয়ে। ঘটনার প্রায় ছয় বছর আগে একই এলাকার মোতালেব এর সাথে তার বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকে উভয়ের মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মনোমালিন্য চলতে থাকে। এক পর্যায়ে ঘটনার কিছু দিন আগে থেকে স্বামী স্ত্রী উভয়ে ঢাকায় আলাদা বাসা নিয়ে বসবাস করতে থাকে। রীনা বেগম আশুলিয়া এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে চাকুরী করলেও তার স্বামী কালিয়াকৈর এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে সেখানকার একটি পোশাক কারখানায় কাজ করত।

স্ত্রীর সাথে অন্য ছেলের পরকীয়ার সম্পর্ক আছে এমন সন্দেহ থেকে প্রায়ই উভয়ের মধ্যে ঝগড়া হতো । মনোমালিন্য এবং স্ত্রীর পরকীয়ার সন্দেহ থেকে গত বছরের ২৮ জানুয়ারী কালিয়াকৈর থেকে স্ত্রীর বাসায় এসে স্ত্রীকে কৌশলে সন্ধ্যা অনুমান ০৬ ঘটিকার সময় আশুলিয়ার জিরাবো ঘোষবাগ এলাকার গ্রামীন ট্রাস্ট এর পেছনে ফাকা মাঠে ডেকে এনে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ইট দিয়ে মাথা থেতলে নির্মমভাবে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

পরের দিন ২৯ জানুয়ারী এলাকাবাসীর মাধ্যমে আশুলিয়া থানা পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করে। এসময় ভিকটিমের কোন পরিচয় না পাওয়ায় পুলিশ বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়।

মামলাটি আশুলিয়া থানা পুলিশ এর কাছ থেকে স্ব উদ্যোগে পিবিআই ঢাকা জেলা তদন্তভার গ্রহন করে। তদন্তভার পেয়ে মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআই ঢাকা জেলার উপ পুলিশ পরিদর্শক (এস আই) আঃ মোত্তালেব প্রায় দেড় বছর পর ক্লুলেস এই মামলার রহস্য উদঘাটন সহ আসামীকে গ্রেফতার করে। মামলাটিতে তথ্য প্রযুক্তিগত বিভিন্ন দিক দিয়ে সহযোগীতা করেন পিবিআই ঢাকা জেলার উপ পুলিশ পরিদর্শক (এস আই) সালেহ ইমরান।

পিবিআই ঢাকা জেলার উপ পুলিশ পরিদর্শক (এস আই) আঃ মোত্তালেব জানান, গ্রেফতারকৃত আসামীর দেওয়া স্বীকারোক্তি যাচাই করা হচ্ছে। যাচাই বাছাই শেষে খুব শীঘ্রই মামলাটির চার্জশীট বিজ্ঞ আদালতে প্রদান করা হবে বলেও জানান তিনি।

ক্রাইম ডায়রি///আইন শৃঙ্খলা/

210total visits,1visits today

About Author

Leave A Reply