পুলিশের ব্যক্তিগত কাজে গাড়ি রিকুইজিশনে নিষেধাজ্ঞা হাইকোর্টের

0

এড.আবুল বাশার, হাইকোর্ট সংবাদদাতাঃ

যখন তখন গাড়ি রিকুইজিশন করে নেয়া দেখলে মনে হয় নিজ দেশে  পরবাসী হয়ে আছে গাড়ির মালিকেরা।প্রাচীনকালে  কর বা জিজিয়া প্রদানের মত বাধ্য হয়েই এটা করতে হয় সাধারণ মানুষের। আদালতের  দৃষ্টিগোচর হলে জনগনের স্বার্থে    ব্যক্তিগত কাজে গাড়ি, সিএনজি অটোরিকশা ও ট্যাক্সি রিকুইজিশন করা যাবে না বলে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপির) পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোশতাক হোসেন।রায় শেষে মনজিল মোরসেদ সাংবাদিকদের বলেন, এ বিষয়ে জারি করা রুল নিষ্পত্তি করে হাইকোর্ট কয়েক দফা নির্দেশনা দিয়েছেন।

সেগুলো হলো- যে কোনো গাড়ি রিকুইজিশন অবশ্যই জনস্বার্থে করতে হবে। যদি কেউ না করে সে কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে।রিকুইজিশন করা গাড়ি কোনো কর্মকর্তা ব্যক্তিগত বা পরিবারের কাজে ব্যবহার করতে পারবেন না। করলে অসদাচরণের জন্য ব্যবস্থা নিতে হবে।

রিকুইজিশন করা গাড়ির ব্যাপারে প্রত্যেক পুলিশ স্টেশনে তালিকা সংরক্ষণ করতে হবে। ব্যক্তিগত গাড়ি রিকুইজিশন করা যাবেনা।  রিকুইজিশনের ব্যাপারে যে কোনো অভিযোগ পুলিশ কমিশনার তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবেন।

রিকুইজিশনকৃত গাড়ির ক্ষতি হলে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। গাড়ির পেট্রোল খরচ বহন করতে হবে। চালকদের খাবার খরচ দিতে হবে।ছয় মাসের মধ্যে একই গাড়ি দ্বিতীয়বার রিকুইজিশন করা যাবে না। নারী, শিশু, রোগী থাকলে সে গাড়ি রিকুইজিশন করা যাবে না।

পুলিশ কমিশনার একটি সার্কুলার ইস্যু করে সব পুলিশ কর্মকর্তার কাছে পাঠাবেন এবং নির্দেশনা মানা নিশ্চিত করবেন।আদালত মামলাটি চলমান রেখেছেন বলে জানিয়েছেন মনজিল মোরসেদ।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ অধ্যাদেশের ১০৩(ক) ধারার অধীনে পুলিশ কর্তৃক গাড়ি রিকুইজিশনের বিধান নিয়ে ২০১০ সালে মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে জনস্বার্থে এ রিট আবেদন করা হয়েছিল। তবে এইরায়ে খুশি পুরোদেশবাসী।

ক্রাইম ডায়রি///আদালত///

0total visits,0visits today

About Author

Leave A Reply