ব‌িএনপ‌ি’র কাউন্সিল অচীরেই

0

শরীফা আক্তার স্বর্নাঃ

ন‌েত্রীক‌ে জেলখানায় রেখে  কাউন্স‌িলের   প্রস্তুুতি  ন‌িচ্ছে  বিএনপ‌ি  । সপ্তম জাতীয় কাউন্সিলের    ব্যাপারে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ শনিবার রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

এর আগে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির নতুন নির্বাচিত দুজনসহ অন্য সদস্যদের নিয়ে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত করেন মির্জা ফখরুল। এ সময় দলটির অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটিতে কেন স্থায়ী কমিটির নতুন সদস্য মনোনয়ন দেওয়া হলো এবং বিএনপির কাউন্সিল নিয়ে আপনাদের পরিকল্পনা কি- এই প্রশ্নের জবাবে ফখরুল বলেন, ‘জাতীয় স্থায়ী কমিটিতে যেকোনো সময় নিয়োগ এবং সদস্য নির্বাচিত করা যায়। আর কাউন্সিলের প্রস্তুতি আমরা নিচ্ছি। এজন্য ইতিমধ্যে আমাদের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আর জেলাগুলোতে আমরা পুনর্গঠনের কাজ শুরু করেছি।’স্থায়ী কমিটিতে আরও তিনটি শূন্য পদ আছে- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে বিএনপি মহাসচিব বলেন, সেগুলোতেও প্রয়োজনে যথাসময়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিএনপির নির্বাহী কমিটি থেকে অনেকে চলে যাচ্ছে- সেক্ষেত্রে কি কাউন্সিলের আগেই সেগুলো পূরণ করা হবে- এই প্রশ্নের জবাবে ফখরুল বলেন, ‘এটা আমরা দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেবো।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজকে আমরা দলের পক্ষ থেকে বিএনপির নব নির্বাচিত দুজন স্থায়ী কমিটির সদস্যকে “ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও বেগম সেলিমা রহমান” নিয়ে সঙ্গে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে এসেছিলাম শ্রদ্ধা জানাতে। এখানে এসে আমরা নতুন করে স্থায়ী কমিটির সদস্যদের নিয়ে শপথ নিয়েছি যে, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও গণতন্ত্রের মুক্তির সংগ্রামকে আরও বেগবান করা হবে।’বিএনপি মহাসচিব বলেন, কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত দেওয়া হয়েছিল যে, দলের চেয়ারপারসনের অনুপস্থিতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও স্থায়ী কমিটির সদস্যরা- তারা দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য কিংবা দলের অন্য সদস্য প্রয়োজন হলে মনোনয়ন দিতে পারবেন এবং নির্বাচিত করতে পারবেন। সেই ক্ষমতা দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, তাদের দেওয়া আছে। সেই ধারাবাহিকতায় দলের স্থায়ী কমিটির শূন্য পদগুলোতে দুজন আমাদের প্রবীণ নেতা, যারা ইতিমধ্যে দীর্ঘকাল ধরে দলের মধ্যে তাদের অবদান রেখেছেন, তাদের নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা করেছেন, জনগণের মধ্যে তাদের একটি ইতিবাচক ভাবমূর্তি রয়েছে- তাদেরকে স্থায়ী কমিটির সদস্য হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছে।

ক্রাইম  ডায়র‌ি/ রাজনীত‌ি

 

0total visits,0visits today

About Author

Leave A Reply