কে হবেন তাবলীগের পরবর্তী মুরব্বী?

0

স্পেশাল ডেস্কঃ

উপমহাদেশে বহুল প্রচলিত তাবলীগি আকিদা ধ্যান ধারনায় ঘুন ধরানো মাওলানা সাদের বিভিন্ন বক্তব্যকে কেন্দ্র করে তাবলিগ জামাতের নেতৃত্ব থেকে মাওলানা সাদকে সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কে হবেন পরবর্তীত মুরব্বী তা নিয়ে জনমনে চলছে নানা জিজ্ঞাসা। তাবলীগ জামাত এদেশের মানুষের প্রিয় সংগঠন। যে দল বা মতেরই হোক না কেন জীবনে তাবলীগে যায়নি এমন লোক খুজে পাওয়া দুস্কর। তাই, তাবলিগ জামাতের চলমান সংকট উত্তরণের লক্ষ্যে গতকাল মোহাম্মদপুর তাজমহল রোডসংলগ্ন ঈদগাহ মাঠে অনুষ্ঠিত ওজাহাতি জোড়ে (স্পষ্টকরণ বৈঠক) এ সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফী। এতে হাজার হাজার ওলামায়ে কিরাম ও তাবলিগের সাথী উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক উদ্বোধন করেন মালিবাগ মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল শায়খুল হাদিস আল্লামা আশরাফ আলী। আল্লামা আহমদ শফীসহ বক্তারা বলেন, শতাব্দীব্যাপী দীর্ঘ সময়ে তাবলিগি কাজে কখনই কোনো বিশৃঙ্খলা পরিলক্ষিত হয়নি। কিন্তু মাওলানা সাদের ওপর জিম্মাদারি এলে তিনি উম্মতের বৃহত্তর স্বার্থের বিপরীতে ক্ষুদ্র চিন্তা-ভাবনার দ্বারা তাড়িত হয়ে এমন কিছু কথা ও কাজ মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দেন যার কারণে তাবলিগের মূল দৃষ্টিভঙ্গিই আজ ধূলিসাৎ হতে চলেছে। পৃথিবীর প্রান্তে প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সাথীদের চিন্তার মাঝে মারাত্মক বিভেদ সৃষ্টি হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে মাওলানা সাদের বিভ্রান্তিকর বক্তব্য স্পষ্টকরণে এ জোড়ের প্রয়োজন ছিল। কারণ মাওলানা সাদ তার বিভিন্ন বয়ানে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের আকিদা-বিশ্বাসের পরিপন্থী বহু বিষয় এনেছেন; যার মধ্যে দীনের অপব্যাখ্যা, মনগড়া তাফসির, ভুল মাসালা বর্ণনা, নবীদের শানে বেয়াদবিপূর্ণ উক্তি, দীনের অন্যান্য শাখাকে হেয় প্রতিপন্ন বা বাতিল সাব্যস্ত করার মতো গুরুতর বিষয়াদি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। তাবলীগ জামাতকে কলুষমুক্ত করা হোক এ দাবী  দেশের আপামর মুসলিম জনতার।

ক্রাইম ডায়রি/.জাতীয়

328total visits,1visits today

About Author

Leave A Reply